উইন্ডোজ সেটআপ সমস্যা | এমবিআর টু জিপিটি কনভার্ট । পর্টিশন স্টাইল | Convert MBR to GPT Partition style |

উইন্ডোজ সেটআপ করা যাচ্ছেনা কম্পিউটারের । কয়েকটা সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন । তার ভিতর থেকে উল্লেখযোগ্য কারণ পেনড্রাইভ, অনেক সময় সঠিক নিয়মে পেনড্রাইভে বুট হয় না । অথবা কোন ফাইল ম্যাচিং থাকতে পারে ।সেক্ষেত্রে পেনড্রাইভ অথবা ডিভিডি চেক করে নিবেন। কোন সমস্যা রয়েছে কিনা। ডিভিডি নতুন একটা কিনে আনবেন অথবা নতুন করে পেনড্রাইভ বুট করবেন। দয়া করে খুব সুন্দর ভাবে এই পোস্টটি দেখুন আপনার কম্পিউটারে কি সমস্যা এবং এইখানে এই সমস্যাটির সমাধান রয়েছে কিনা।

উইন্ডোজ সেটআপ সমস্যা | এমবিআর টু জিপিটি কনভার্ট । পর্টিশন স্টাইল | Convert MBR to GPT Partition style |


উইন্ডোজ সেটআপ করার সময় ড্রাইভ শো করেনা।

কম্পিউটারে উইন্ডোজ সেটআপ করার সময় । আমাদের কম্পিউটারে থাকা হার্ড ড্রাইভ দেখতে পাই না । তার কারণ হচ্ছে ,আপনার হার্ড ড্রাইভে যদি কোন সমস্যা থাকে, তাহলে হার্ড ড্রাইভ টি হয়তোবা, না দেখা যেতে পারে । কারণ হার্ড একটি কম্পিউটার থেকে ডিসকানেক্টেড বা কোন সমস্যা আছে। হার্ড ড্রাইভ টি একটু খুলে, আবার কানেক্ট করবেন । তাহলে সমস্যাটির সমাধান হয়ে যেতে পারে । অনেক সময় ডিভিডি অথবা পেন ড্রাইভ এ, যদি কোন সমস্যা থাকে, সে ক্ষেত্রে কম্পিউটার পেনড্রাইভ অথবা ডিভিডি নতুন করে আবার কানেক্ট করে, কম্পিউটার রিস্টার্ট করে দেখবেন তাহলে। সমস্যা কি সমাধান হয়ে যাবে আশা করি ।

এমবিআর পার্টিশন স্টাইলের কারণে। উইন্ডোজ সেটআপ করা যায় না। 

কম্পিউটারে কেন উইন্ডোজ সেটআপ হয় না । কি সমস্যার কারণে, উইন্ডোজ সেটআপ হয়না। উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কারণ রয়েছে, এ সমস্যা থাকলে হয়তো কম্পিউটারে উইন্ডোজ সেটআপ করতে পারবেন না । তার ভিতর অন্যতম একটি সমস্যা হতে পারে,এমবিআর,জিপিটি। পার্টিশন স্টাইল। যদি আপনার পুরাতন কম্পিউটারের,এমবিআর পার্টিশন করা থাকে । তাহলে এমবিআর পার্টিশনে উইন্ডোজ সেটআপ করতে হবে । হয়তো উইন্ডোজ বুটেবল করার সময়, জি পি টি ,বুটেবল হয়ে থাকতে পারে। সে ক্ষেত্রে নতুন করে, ইউজবি বা পেনড্রাইভে, এমবিআর পার্টিশনে, বুট করতে হবে ।

জি পি টি পার্টিশন স্টাইলের কারণে। উইন্ডোজ সেটআপ করা যায় না। 

পুরাতন কম্পিউটারে যদি, উইন্ডোজ সেটআপ জিপিটি পার্টিশন স্টাইলে করা থাকে তাহলে। ইউএসবি বা পেনড্রাইভ বুটাবল করার সময়, অবশ্যই জিপিটি পার্টিশন সিলেট করে দিতে হবে । অথবা হার্ডডিস্ক, জিপিটি পার্টিশন কনভার্ট করে। উইন্ডোজ সেটআপ করতে হবে ।  এমবিআর থেকে জিপিটি পার্টিশন এ কনভার্ট করতে পারেন তার জন্য কম্পিউটার ওপেন এবং সফটওয়্যার সেটআপ থাকতে হবে । কিভাবে এমবিআর থেকে জিপিটি পার্টিশনে কনভার্ট করবেন। সফটওয়্যার ব্যবহার করে। ( Post Link ) 

কম্পিউটার ওপেন হচ্ছে না । উইন্ডোজ সেটআপ না থাকার কারণে।

যদি আপনার কম্পিউটার ওপেন থাকে,সফটওয়্যার ইন্সটল করতে পারেন । এমবিআর বা জিপিটি, কনভার্ট করার সুযোগ থাকে । তাহলে উপরের লিংক থেকে,সফটওয়্যার ইন্সটল করে । এমবিআর টু জিপিটি  কনভার্ট করে নিতে পারেন । অথবা কম্পিউটার ওপেন করার সুযোগ না থাকে । তাহলে কম্পিউটার ক্লিন করে অর্থাৎ সব কিছু ডিলিট করে দিয়ে। নতুন করে পার্টিশন স্টাইল সাজিয়ে ওপেন করে নিতে পারেন । উইন্ডোজ সেটআপ করতে পারেন । নিচে দেখুন কিভাবে ক্লিন করতে হয় সবকিছু ডিলিট করে নতুন পার্টিশন করা যায় ।

কিভাবে কম্পিউটারে নতুন করে পার্টিশন করা হয়। 

পার্টিশন করার জন্য কম্পিউটারে অনেকগুলো পদ্ধতি রয়েছে । তার ভিতর থেকে উল্লেখযোগ্য পদ্ধতি হচ্ছে। উইন্ডোজ সেটআপ করার সময় । নতুন করে পার্টিশন সাজিয়ে নেওয়া । অথবা উইন্ডোজ সেটআপ করার পরে,ডিক্স  ম্যানেজমেন্ট থেকে পার্টিশন সাজানো । বিস্তারিত দেখার জন্য এই লিংকে ক্লিক করে বিস্তারিত দেখে নিন কিভাবে পার্টিশন সাজানো যায়। 

কিভাবে ডাটা ক্লিন করে নতুন করে পার্টিশন করবেন।

সতর্কীকরণ : > আপনার হার্ড ড্রাইভে যদি গুরুত্বপূর্ন ডাটা থাকে। তাহলে অবশ্যই ডাটাগুলো ব্যাকআপ রাখবেন। কারণ ক্লিন হয়ে গেলে, আপনি আপনার ডাটা আর ফিরে পাবেন না । সবকিছু ডিলিট হয়ে যাবে। নতুন করে পার্টিশন করতে হবে । আরএমবি টু জিপিটি ,এ ধরনের সমস্যা হলে । সহজেই সফটওয়্যার ব্যবহার করে, কনভার্ট করতে পারেন । যদি সমস্যাগুলো সমাধান করার কোন উপায় না থাকে। তাহলে আপনি ক্লিন করে নিতে পারেন । 

01 > স্টেপ - উইন্ডোজ সেটআপ করার অপশন এ যান ।  
02 > স্টেপ - ড্রাইভ গুলো সিলেক্ট করুন ।এবার ডিলিট করুন। যদি সবগুলো ড্রাইভ ডিলিট করার পরেও ,সমস্যাটি সমাধান না হয়। তাহলে হার্ড ড্রাইভ টি ক্লিন করুন ।
03 > স্টেপ - যদি সমস্যাটির সমাধান না হয়। তাহলে হার্ড ড্রাইভ ক্লিন করুন । ক্লিন করার জন্য সিএমডি ,কমান্ড ব্যবহার করতে হবে । কমেন্ট এপ্লাই করার জন্য কীবোর্ড থেকে ( ‍Shift +F10 ) বাটনে ক্লিক করুন। 

এবার কোড লিখুন ( diskpart ) কোড লিখে এন্টার বাটনে ক্লিক করুন।

04 > স্টেপ - এবার হার্ড ড্রাইভ গুলো শো করানোর জন্য কোড লিখুন। ( list disk )  কোড লিখে এন্টার বাটনে ক্লিক করুন ।
 
আপনার কম্পিউটারে থাকা,হার্ড ড্রাইভ গুলো দেখতে পাবেন। কয়টা হার্ডড্রাইভ আছে, এটা দেখে নিন এবং কোন হার্ডড্রাইভ ক্লিন করবেন। নিশ্চিত হয়ে পদক্ষেপ নিন । কারণ ক্লিন হলে, সব কিছু ডিলিট হয়ে যাবে । আর খুঁজে পাবেন না ,সে ক্ষেত্রে সতর্কতার সাথে, কাজটি সম্পূর্ণ পড়ুন । 
05 > স্টেপ -  এবার হার্ড ড্রাইভ সিলেক্ট করুন । ( select disk 0 )   এবার এন্টার বাটনে ক্লিক করুন। মনে রাখবেন, এখানে হার্ড ড্রাইভ গুলো জিরো থেকে সিরিয়াল ধরা হবে। অর্থাৎ একটা হার্ডড্রাইভ থাকলে,(0) জিরো দুইটা থাকলে (1)এক এইভাবে হিসাব করা হয় । সিলেট করার সময় 0 = 1 নিশ্চিত হয়ে নিন ।
06 > স্টেপ -  এবার এখানে লেখা থাকবে সিলেক্টেড হয়েছে কিনা। যদি এই লেখাটি দেখেন। তাহলে ডিস্ক সিলেক্ট হয়েছে ।

07 > স্টেপ - এবার ক্লিন হওয়ার জন্য কোড লিখুন । ( clean ) লেখা শেষ হলে ইন্টার বাটনে ক্লিক করুন।
08 > স্টেপ - এবার এখানে এসে রিফ্রেশ বাটন ক্লিক করে রিফ্রেশ করে নিন।
09 > স্টেপ - এবার এই উইন্ডোটি কেটে দিন ।
10 > স্টেপ - এবার এখানে ক্লিক করে রিফ্রেশ করুন।

11 > স্টেপ - এবার ড্রাইভটি সিলেক্ট করে উইন্ডোজ করুন। যদি নতুন করে পার্টিশন সাজাতে হয়। উইন্ডোজ সেটআপ করার সময়। তাহলে এখানে ক্লিক করে, পার্টিশন সাজিয়ে নিতে পারেন, অথবা ডিটেলস জানার জন্য এই পোস্টে গিয়ে ডিটেল জেনে নিতে পারেন। (নতুন পার্টিশন স্টাইল পোস্ট )
হয়ে গেল সফলভাবে উইন্ডোজ সেটআপ হচ্ছে না সমাধান। আশা করি,আপনি বুঝতে পেরেছেন, যদি বুঝতে না পারেন । কোন সমস্যা হয়, তাহলে আমাকে কমেন্ট বক্সে জানিয়ে দিবেন । অথবা বিস্তারিত জানার জন্য লিংক গুলো অনুসরন করুন । পদক্ষেপ গুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করলেই, সমস্যাটি সহজে সমাধান করা যায়। 


Windows Cannot be installed to this disk Use another Disk

যদি এ ধরনের কোন মেসেজ আপনার সামনে দেখতে পান। তাহলে মনে রাখবেন, আপনার হার্ড ড্রাইভে সমস্যা রয়েছে অর্থাৎ এই ড্রাইভে উইন্ডোজ সেটাপ করা যাবে না ।  অন্য একটি হার্ডডিস্ক লাগিয়ে,  উইন্ডোজ দিতে হবে । এই হার্ড ড্রাইভে উইন্ডোজ সেটাপ করতে পারবেন না । 

Windows Dynamic To Basic Disk | উইন্ডোজ ডায়নামিক টু বেসিক | 

হার্ডড্রাইভ যদি, ডায়নামিক হয়ে যায় | তাহলে উইন্ডোজ সেটআপ করতে পারবেন না | কারণ উইন্ডোজ শুধুমাত্র,বেসিক পার্টিশনে সেটআপ করা যায় | ডায়নামিক হার্ডড্রাইভে উইন্ডোজ সেটআপ না হওয়ার কারণে | আমাদেরকে ডায়নামিক থেকে বেশি কে কনভার্ট করে নিতে হয় | কিভাবে ডায়নামিক থেকে বেসিকে  কনভার্ট করবেন বিস্তারিত দেখুন ।

কেন হার্ডড্রাইভ ডায়নামিক হয়ে যায় । 

ডায়নামিক হওয়ার জন্য বেশ, কয়েকটি কারণ রয়েছে । তার ভীতর উল্লেখযোগ্য কারণ হচ্ছে । মারওয়ার বা ভাইরাস, কম্পিউটার এন্টিভাইরাস থাকে বা ভাইরাস অ্যাটাক করে । তাহলে আপনার কম্পিউটারটি যে কোনো কারণবশত, ডাইনামিক হার্ডড্রাইভে কনভার্ট হয়ে যেতে পারে । সেক্ষেত্রে আপনাকে ঝামেলায় পড়তে হয় । আবার অনেক সময় আমাদের কাজের প্রয়োজনে, বেসিক হার্ড ড্রাইভ টি, ডায়নামিক এ রূপান্তরিত করে নিতে হয়।

কিভাবে ডায়নামিক হার্ডড্রাইভ বেসিকে কনভার্ট করবেন।

ডায়নামিক হার্ড ড্রাইভ টি বেসিকে কনভার্ট করার জন্য দুইটা পদ্ধতি রয়েছে। একটা (এক) সম্পূর্ণ হার্ডড্রাইভ ক্লিন করে, অর্থাৎ ডাটা গুলো ডিলিট করে। নতুন পার্টিশন করে,(দুই ) পদ্ধতি একটা সফটওয়্যার ইন্সটল করে, সফটওয়্যার এর মাধ্যমে ,ডায়নামিক টু বেসিক কনভার্ট করতে পারেন । নিচে দেখুন সফটওয়্যার ইন্সটল করে কিভাবে ডায়নামিক থেকে বেশি কে কনভার্ট করবেন । উপরে দেখুন কিভাবে ডাটা ক্লিন করে বেসিকে কনভার্ট করবেন । প্রয়োজন হলে এই ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখতে পারেন আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে পাশে থাকবেন ( Link )

Post a Comment

মূল্যবান মতামতের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ

Previous Post Next Post