কিভাবে হার্ডডিস্ক পার্টিশন করা হয় । কিভাবে হার্ডডিস্ক পার্টিশন করতে হয় । How to partition hard disk

কিভাবে হার্ডডিস্ক পার্টিশন করতে হয় । How to partition hard disk কিভাবে ল্যাপটপ কিংবা কম্পিউটারে হার্ডডিস্ক পার্টিশন করবেন। নতুন কম্পিউটার কিনলে বা নতুন একটি হার্ড ড্রাইভস কিনলে। হার্ড ড্রাইভ টি  প্রাথমিক অবস্থায় (Unallocated Space ) অনির্ধারিত স্থান ।

কিভাবে হার্ডডিস্ক পার্টিশন করা হয় । কিভাবে হার্ডডিস্ক পার্টিশন করতে হয় । Howto partition hard disk



থাকে অর্থাৎ এটা পার্টিশন করতে হয় । পার্টিশন করার জন্য আপনি তিনটি উপায়ে খুব সহজে,পার্টিশন সম্পন্ন করতে পারেন । যদি নতুন কম্পিউটার হয়। তাহলে উইন্ডোজ সেটআপ করার সময়, পার্টিশন করে নিতে পারেন । অথবা কম্পিউটারে অলরেডি উইন্ডোজ সেটাপ করা আছে । তাহলে এ অবস্থায়, আপনার হার্ডডিক্স পার্টিশন করে নিতে পারেন। দুইটা উপায় পার্টিশন করা শিখাবো ।

উইন্ডোজ সেটআপ করার সময় কিভাবে পার্টিশন করা হয়।

নতুন কম্পিউটার যদি হয় । নতুন হার্ডড্রাইভ হলে, উইন্ডোজ সেটআপ করার সময়,পার্টিশন সম্পন্ন করে নিতে পারেন । তার জন্য উইন্ডোজ সেটআপ করার অপশন এ আপনাকে যেতে হবে । আপনি যদি না জানেন। কিভাবে উইন্ডোজ সেটআপ করতে হয় । তাহলে এই পোস্ট থেকে জেনে নিন। চলুন দেখে নেই কিভাবে নতুন কম্পিউটারে পার্টিশন করবেন।
 
০১ স্টেপ > আপনার কম্পিউটারটি রিস্টার্ট করুন। পেনড্রাইভ অথবা ডিভিডি কানেক্ট করুন । উইন্ডোজ সেটআপ করুন । এবার এখানে এসে পার্টিশন করুন। 
 
০২ স্টেপ >  এবার আপনার ড্রাইভ টি সিলেক্ট করুন অতঃপর নিউ তে ক্লিক করুন।
 
 
০৩ স্টেপ >  এবার কত জিপি ড্রাইভ তৈরি করবেন তা সিলেক্ট করুন। আপনি যদি 100 জিপি দিতে চান । তাহলে 100 *1024 ক্যালকুলেটর হিসাব করুন । যে সংখ্যা আসবে এটি এখানে টাইপ করুন । উদাহরণস্বরূপ : 1GP = 1024  
 
 
০৪ স্টেপ >  সংখ্যা টাইপ করা হয়ে গেলে । এখানে এপ্লাই বাটনে ক্লিক করুন।
 
 
০৫ স্টেপ > নতুন হয়ে থাকলে এরকমের অরনিং দিবে । জাস্ট ওকে বাটনে ক্লিক করুন ।
 
 
০৬ স্টেপ >  এবার তিনটা ড্রাইভ তৈরি হয়ে গেল । উপরের দুইটা ড্রাইভ সিস্টেম এবং রিজাভ ড্রাইভ হিসেবে তৈরী হবে । নিচেরটি মেইন পার্টিশন ড্রাইভ । অর্থাৎ এই গ্রুপটিতে উইন্ডোজ সেটআপ করবেন । 
 
 
০৭ স্টেপ > এবার নতুন আরো ড্রাইভ তৈরি করতে চাইলে সিলেক্ট করুন । 
 
 
০৮ স্টেপ > এবার নিউ তে ক্লিক করুন ।
 
 
০৯ স্টেপ > এবার সিলেক্ট করুন কত এমবি বা  জিপি দিবেন। হার্ডড্রাইভের থাকা সবগুলো দিয়ে একটা ড্রাইভ বানাতে চাইলে এপ্লাই তে ক্লিক করুন।
 
 

কিভাবে পুরাতন কম্পিউটারে পার্টিশন করবেন ।

কিভাবে পুরাতন কম্পিউটারে ড্রাইভ ডিলিট করে । নতুন করে পার্টিশন করবেন । কোনো কারণবশত হয়তো পুরাতন ড্রাইভ গুলো ডিলেট করে । নতুন করে পার্টিশন, ড্রাইভ তৈরি করার প্রয়োজন হয় । সেক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই, উইন্ডোজ সেটআপ করার সময়, সবগুলো ড্রাইভ ডিলেট করে ,নতুন করে পার্টিশন করতে পারেন। 
 
০1 স্টেপ >  প্রথমে কম্পিউটারটি রিস্টার্ট করুন অতঃপর উইন্ডোজ সেটআপ অপশনে আসুন । এখানে এসে ড্রাইভগুলোকে সিলেক্ট করে ডিলিট করুন। অতঃপর আন লকেট স্পেস,সেখানে ক্লিক করে সিলেক্ট নিউ তে ক্লিক করুন পার্টিশন তৈরি করুন। প্রয়োজন হলে স্কিনশট গুলো ফলো করুন । 
 
০1 স্টেপ > আপনার পছন্দের ড্রাইভ টি সিলেক্ট করুন তারপর ডিলিট বাটনে ক্লিক করুন।
 
০২ স্টেপ > এখানে একটা ওয়ার্নিং দিবে ডাটা ব্যাকআপ রাখতে চাইলে আগে ব্যাকআপ রাখুন তারপর ওকে বাটনে ক্লিক করুন।
 
 
০২ স্টেপ > এবার আল্লোকেট স্পেস দেখতে পাবেন । চাইলে সবগুলো এক এক করে সিলেক্ট করে ডিলিট করে নিন অতঃপর নতুন করে ড্রাইভ তৈরি করুন উপরে স্ক্রিনশট ফলো করে । উইন্ডোজ সেটআপ করতে যদি কোন সমস্যা হয় । তাহলে এই লিঙ্কে ক্লিক করে দেখে নিন। কি সমস্যা হয়, আর সহজে সমাধান করুন।
 
 
হয়ে গেল সফলভাবে নিজেদের ল্যাপটপ কিংবা কম্পিউটারে নতুন করে পার্টিশন করা । আপনি যদি পুরাতন কম্পিউটারে,পার্টিশন করতে চান। কোন ড্রাইভ নতুন করে তৈরি করতে চান। উইন্ডোজ থাকা অবস্থায় ।তাহলে নিচের স্ক্রিনশট ফলো করুন।
 

কিভাবে উইন্ডোজ থাকা অবস্থায় পার্টিশন করা যায় ।

উইন্ডোজ থাকা অবস্থায়,আপনি খুব সহজেই, নতুনহাট ড্রাইভ পার্টিশন করে নিতে পারেন । অথবা পুরাতন হার্ডড্রাইভের গুলো ডিলেট করে । নতুন করে পার্টিশন করতে পারেন। অথবা কোন একটা ড্রাইভ ভেঙে । নতুন আরেকটা ড্রাইভ তৈরি করতে পারেন । অথবা কোন একটা ড্রাইভ ডিলিট করে অ্যাড করে নিতে পারেন । দুই টা ড্রাইভ ভেঙে একটা ড্রাইভ তৈরি করতে পারেন ।
 
০১ স্টেপ > প্রথমে আপনার কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ টি ওপেন করুন।
 
০২ স্টেপ > এবার দিস পিসি বা মাই কম্পিউটার । রাইট ক্লিক করে । ম্যানেজ এ ক্লিক করুন ।
 
 
০৩ স্টেপ > এবার এখান থেকে ডিক্স ম্যানেজমেন্ট এ ক্লিক করুন। 
 
 
০৪ স্টেপ > উইন্ডোজ থাকা অবস্থায় । নতুন হার্ডড্রাইভ কানেক্ট করে । এভাবে আসবে সে ক্ষেত্রে এখান  থেকে জি পি টি সিলেক্ট করুন । তারপর ওকে বাটনে ক্লিক করুন । 
 
 
০৫ স্টেপ > এবার হার্ড ড্রাইভ টি সিলেক্ট করুন ।  রাইট ক্লিক করে সিম্পল নিউ ভোলিয়াম এ ক্লিক করুন ।
 
 
০৬ স্টেপ > এবার নেক্সট এ ক্লিক করুন ।
 

০৭ স্টেপ > কত জিপি তে একটা ড্রাইভ তৈরি করতে চান । ক্যালকুলেটরের হিসাব করে এখানে টাইপ করুন। যেমন 100gb দিতে চাই । সেক্ষেত্রে 100 গুন 1024 । ক্যালকুলেটরে গুন করে যে সংখ্যা আসবে এটা এখানে টাইপ করুন । উদাহরণস্বরূপ 1 জিপি তে 1024 গুণ করতে হবে । সংখ্যা টাইপ করা হলে নেক্সট এ ক্লিক করুন ।

 
 
০৮ স্টেপ > সংখ্যা টাইপ করা হলে নেক্সট এ ক্লিক করুন ।
 

০৯ স্টেপ > এবার এখানে ডিফল্ট রেখে নেক্সট এ ক্লিক করুন।
 

১০ স্টেপ > এখানে একটা ড্রাইভার নাম দিন অথবা ডিফল্ট রেখে নেক্সট এ ক্লিক করুন । 
 

১১ স্টেপ > এবার ফিনিশ বাটনে ক্লিক করুন । 
 

১১ স্টেপ > হয়ে গেল একটা ড্রাইভ তৈরি করা । 
 

১১ স্টেপ > আরো নতুন করে ড্রাইভ তৈরি করতে চাইলে একই নিয়মে তৈরি করে নিন ।
 

হয়ে গেল সফলভাবে,নতুন হার্ড ড্রাইভ পার্টিশন সম্পন্ন করা । এবার আপনি চাইলেই, ড্রাইভ ভেঙে নতুন করে ড্রাইভ তৈরি করতে পারেন । অথবা একটা ড্রাইভকে দুইটা ড্রাইভ এ রূপান্তরিত করতে পারেন ।
 

কিভাবে কম্পিউটারের একটি ড্রাইভ ভেঙ্গে দুইটা ড্রাইভ তৈরি করব । 

কোনো কারণবশত,কম্পিউটারের হার্ড ড্রাইভ গুলো,ভেঙ্গে নতুন করে ড্রাইভ তৈরি করার প্রয়োজন হতে পারে । সেক্ষেত্রে আপনি চাইলেই একটা হার্ডড্রাইভ ভেঙ্গে ,দুইটা হার্ডড্রাইভে রূপান্তিত করতে পারেন । কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই । সতর্ককরণ যদি গুরুত্বপূর্ন ডাটা থাকে, তাহলে ব্যাকআপ রেখে এ কাজটি সম্পন্ন করবেন ।
 
এখানে দুইটা ড্রাইভ আমি চাই বড় একটা ড্রাইভ ভেঙে আর একটা ছোট ড্রাইভ তৈরি করব ।
 

 
 

০১ স্টেপ > এবার ডিক্স ম্যানেজমেন্ট এ গিয়ে আপনার পছন্দের ড্রাইভ টি যেটি ভাগ করতে চান ওইটার উপরে রাইট ক্লিক করুন । 

০২ স্টেপ > এবার ডিরেক্ট সিলেক্ট করে রাইট ক্লিক করুন । shrink volume এখানে ক্লিক করুন ।

০৩ স্টেপ > এখানে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্যালকুলেট হবে অপেক্ষা করুন ।

 

০৪ স্টেপ > এবার এখানে টাইপ করুন কত জিপি আলাদা করতে চান । 1 জিবি সমান সমান 1000 24 গুন করে ক্যালকুলেটর হিসাব করুন1 জিবি সমান সমান 1024 ক্যালকুলেটর হিসাব করে এখানে সংখ্যাটি টাইপ করুন ।shrink  এখানে ক্লিক করুন ।

 

০৫ স্টেপ > এখন ড্রাইভ টি আল্লোকেট স্পেস দেখতে পাবেন। এখন নতুন একটি ড্রাইভ তৈরি করতে পারেন । উপরের স্ক্রিনশট ফলো করে । একটা নতুন ড্রাইভ তৈরি করুন । 

 

০৫ স্টেপ > এবার রাইট ক্লিক করুন এবং সিম্পল নিউ ভোলিয়াম এখানে ক্লিক করুন। নেক্সটে নেক্সট এ ক্লিক করুন এবং ফিনিশ বাটনে ক্লিক করুন একটা ড্রাইভ তৈরি হয়ে যাবে ।

 

এখানে তিনটা ড্রাইভ দেখা যাচ্ছে আগে দুইটা ড্রাইভস ছিল অর্থাৎ নতুন একটি ড্রাইভ তৈরি হয়ে গেছে ।

কিভাবে দুইটা ড্রাইভ ভেঙে একটা ড্রাইভ তৈরি করবেন ।

কম্পিউটারের যেকোন ড্রাইভ ভেঙে একটা ড্রাইভ তৈরি করবেন । তাহলে খুব সহজেই, দুইটা ড্রাইভ বা তিনটা ড্রাইভ ভেঙে । একটা ড্রাইভে রূপান্তিত করতে পারেন। তার জন্য অন্য ড্রাইভ গুলোতে থাকা ডাটাগুলো। আগে ব্যাকআপ রাখবেন। যদি গুরুত্বপূর্ন না হয়। তাহলে ডিলিট করে দিতে পারেন ।
 
01 প্রথমে ডিস্ক ম্যানেজমেন্ট এ যান । এবার আপনার হার্ড ড্রাইভ টি সিলেক্ট করুন। তারপর ডিলিট ভুলি আমি ক্লিক করুন ।
 
02 এবং ওয়ার্মিং দেখবেন যদি ডিলিট করতে চান তাহলে ইয়েস বাটনে ক্লিক করুন ।
 

 

03 এবার আল্লোকেট স্পেস দেখতে পাবেন । তারপর যে ড্রাইভ টি তে অ্যাড করতে চান সেই ড্রাইভ এর উপরে রাইট ক্লিক করুন । এক্সটেন্ড ভলিয়াম ক্লিক করুন ।
 

 

 04 সবগুলো অ্যাড করতে চাইলে নেক্সট এ ক্লিক করুন ।
 
 

 05 এবার কত জিবি এক্সটেন্ড করতে চান। কত জিপি দিতে চান সিলেট করতে চাইলে সে সংখ্যাটি করুন না হলে নেক্সট এ ক্লিক করুন । 

 

06 এবার ফিনিশ বাটনে ক্লিক করুন । 
 

হয়ে গেল সফলভাবে ল্যাপটপ কিংবা কম্পিউটারে পার্টিশন সম্পন্ন করা খুব সহজেই নিজেই পার্টিশন করতে পারেন প্রয়োজন হলে নিজ থেকে পিডিএফ ডাউনলোড করে নিজের মোবাইলে রেখে মোবাইল দিয়ে দেখে পার্টিশন করতে পারেন অথবা আমাদের চ্যানেলকে ভিডিও দেখতে পারেন ।
 
 

এম বি আর থেকে কিভাবে জিপিটি পার্টিশন এ কনভার্ট করবেন । 

মূলত কম্পিউটারে দুই ধরনের পার্টিশন স্টাইল হয়ে থাকে । একটা জিপিটি ।আরেকটা এমবিআর । অনেক সময় পুরাতন কম্পিউটারের । এমবিআর পার্টিশনে থাকে নতুন করে, জিপিটি পার্টিশন এ উইন্ডোজ সেটআপ করতে গেলে। উইন্ডোজ সেটআপ করতে পারেন না। কারণ আগের টি এমবিআর ।পার্টিশন স্টাইল ছিল। এখন বুট করেছেন । জি পি টি । এর জন্য উইন্ডোজ সেটআপ সমস্যা হয় । কিভাবে এম বি আর থেকে জিপিটি কনভার্ট করবেন । ( আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে পাশে থাকুন )
 

 

 

Post a Comment

মূল্যবান মতামতের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ

Previous Post Next Post